লম্বা হওয়ার উপায়
| |

খুব সহজেই ১০টি লম্বা হওয়ার উপায় জেনে নিন

আমরা কমবেশি সবাই লম্বা হতে চাই কিংবা লম্বা কাউকে পছন্দ করি। খাটো মানুষ যতই সুন্দর কিংবা পারফেক্ট হোক না কেন তবু বলা হয় তার একটা খুঁত আছে বা সমস্যা রয়েছে। সেটা হচ্ছে তিনি লম্বা নয় খাটো। বর্তমানে অনেক লম্বা হওয়ার  উপায় রয়েছে। যেমন, কিছু চিকিৎসা পদ্ধতি বের হয়েছে এবং সঠিক পরিচর্যার মাধ্যমে অবশ্যই লম্বা হওয়া…

আমরা কমবেশি সবাই লম্বা হতে চাই কিংবা লম্বা কাউকে পছন্দ করি। খাটো মানুষ যতই সুন্দর কিংবা পারফেক্ট হোক না কেন তবু বলা হয় তার একটা খুঁত আছে বা সমস্যা রয়েছে। সেটা হচ্ছে তিনি লম্বা নয় খাটো। বর্তমানে অনেক লম্বা হওয়ার  উপায় রয়েছে। যেমন, কিছু চিকিৎসা পদ্ধতি বের হয়েছে এবং সঠিক পরিচর্যার মাধ্যমে অবশ্যই লম্বা হওয়া সম্ভব।

একটা বিষয় তো সবাইর জানা কিছু চাকুরি রয়েছে যেখানে লম্বা হওয়াটা আবশ্যক। যেমনঃ পুলিশ, সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী, বিমান বাহিনীতে, এয়ারলাইন্স চাকরিতে নিদিষ্ট পরিমাপ অনুযায়ী লম্বা হতে হয়। সে ক্ষেত্রে যাদের উচ্চতা কম বা খাটো তাদের চাকরি পাওয়া খুব কষ্টকর ব্যাপার হয়ে ওঠে। তাছাড়া যেকোন জায়গাতে আজকাল লম্বা স্মার্ট লোকদের কদর করা হয়। আর খাটোদের যেখানে সেখানে অপমানিত হতে হয়।

বেশকিছু কারণ আপনার সামগ্রিক উচ্চতায় অবদান রাখে। আপনি কতটা লম্বা হবেন তার প্রধান নির্ধারক আপনার জিন। এটা মনে করা হয়েছে জেনেটিক কারণগুলো আপনার চূড়ান্ত উচ্চতার ৬০ থেকে৮০ শতাংশের জন্য দায়ী। কিছু পরিবেশগত কারণ যেমন পুষ্টি, ব্যায়াম এবং সাধারণ অবশিষ্ট শতাংশের জন্য দায়ী। যেখানে আপনার বৃদ্ধির প্রায় 20 থেকে 40% আপনার নিজের পরিবেশ দ্বারা প্রভাবিত হয়। এর মানে হল আপনার খাদ্য-স্বাস্থ্য আপনি কতটা ব্যায়াম করেন এবং আপনি কতটা ঘুমান। যতক্ষণ না পর্যন্ত আপনার হাড়ের বৃদ্ধি বন্ধ হয়ে যায় আপনি ততক্ষণ পর্যন্ত বাড়তেই থাকবেন।



আপনাকে এই সময়ের তুলনায় লম্বা হতে একটি ভালো ডায়েট স্বাস্থ্যকর ব্যায়াম এবং প্রচুর ঘুম আপনাকে এই সময়ের তুলনায় লম্বা হতে সাহায্য করতে পারে। বেশিরভাগ লোক প্রতিবছর প্রায় দুই ইঞ্চি উচ্চতা বৃদ্ধি করে। বয়সন্ধির মধ্যে আপনি প্রতি বছর 4 ইঞ্চি হারে বৃদ্ধি পেতে পারেন। যাই হোক প্রত্যেকে ভিন্ন গতিতে বৃদ্ধি পায়। মেয়েদের ক্ষেত্রে এই বৃদ্ধি সাধারণত কিশোর বয়স থেকে শুরু হয়। আপনি সাধারণত বয়সন্ধির মধ্য দিয়ে যাওয়ার পরে লম্বা হওয়া বন্ধ করে দেন এর মানে হল যে একজন প্রাপ্তবয়স্ক হিসেবে আপনার উচ্চতা বাড়ার সম্ভাবনা নেই।

আমাদের মনে অনেক রকম প্রশ্ন জাগে বা তৈরি হয় তা হলো লম্বা হওয়ার উপায় কি? কিভাবে লম্বা হওয়া যায়? ব্যায়াম করলে কি তাড়াতাড়ি লম্বা হওয়া যায়? লম্বা হওয়ার কোনো চিকিৎসা পদ্ধতি রয়েছে কি? কত বছর বয়স পর্যন্ত লম্বা হওয়া যায়? এরকম অনেক প্রশ্ন আমাদের মনে সৃষ্টি হয়। এরকম অনেক প্রশ্নের উত্তর এবং লম্বা হওয়ার উপায় জানতে আমাদের এই টিপস গুলো ফলো করতে পারেন।

 

লম্বা হওয়ার উপায়

আপনার বাচ্চার উচ্চতা নিয়ে চিন্তিত কিংবা আপনার উচ্চতা বাড়ানোর চিন্তা করতেছেন। তাহলে বলব আপনার উচ্চতা বাড়ানোর অনেক প্রাকৃতিক উপায় রয়েছে। এরকম অনেক উৎস রয়েছে তারা দাবি করে যে আপনি কিভাবে দ্রুত লম্বা হবেন অনেকে অনেক রকম ধারণা পোষণ করেছেন। নিচে লম্বা হওয়ার উপায় তুলে ধরা হলো।

 

সুষম খাদ্য খান

বৃদ্ধির ক্ষেত্রে বা লম্বা হওয়ার ক্ষেত্রে একটি সুষম খাদ্য অপরিহার্য। ছোট বয়স থেকে শুরু করে আপনার ক্রমবর্ধমান বছরগুলোতে এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ যে আপনার শরীরের প্রয়োজনীয় পুষ্টির দিকে লক্ষ্য রাখা। যা আপনার খাদ্য তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা উচিত তা হল, তাজা ফল, তাজা সবজি, আস্ত শস্যদানা প্রোটিন এবং দুগ্ধজাতীয় খাবার। যেসব খাবার থেকে বিরত থাকা উচিত তাহলো চিনি, জাঙ্ক ফুড সম্পৃক্ত চর্বি। দৈনিক সুষম খাদ্যাভ্যাস হাড়ের স্বাস্থ্য বৃদ্ধি করে যে আপনাকে লম্বা হতে সাহায্য করে। আপনি যদি আপনার বাচ্চাকে লম্বা করতে চান তাহলে কিংবা নিজের উচ্চতা বাড়াতে চান তাহলে অবশ্যই খাদ্যতালিকায় সুষম খাদ্য রাখতে হবে।

 

সতর্কতার সাথে পরিপূরক ব্যবহার

ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী আপনি কালসিয়াম এবং ভিটামিন সম্পুরক গ্রহণ করুন। পরিপূরক গুলো আপনার পুষ্টির চাহিদা পূরণ করে এবং আপনাকে লম্বা হতে সাহায্য করতে পারে। ভিটামিন ক্যালসিয়াম ভিটামিন এ ভিটামিন ডি বিশেষভাবে গুরুত্বপূর্ণ। কারণ তারা শক্তিশালী হারকে সমর্থন করে যা দ্রুত লম্বা হতে সাহায্য করে।

 

পর্যাপ্ত ঘুমান

প্রতি রাতে পর্যাপ্ত পরিমাণ ঘুমান যাতে আপনার শরীর নিজেকে মেরামত করতে পারে। আপনার দৈনন্দিন ক্রিয়া-কলাপ সময় আপনার পেশী গুলো ভেঙ্গে ফেলে যা পর্যাপ্ত পরিমাণ ঘুমানোর ফলে সেগুলো মেরামত হয়। এর ফলে হার শক্তিশালী হয়ে ওঠে এবং উচ্চতা বাড়াতে সাহায্য করে। প্রতিদিন প্রাপ্তবয়স্কদের ঘরে 8 থেকে 9 ঘন্টা ঘুমানো উচিত এতে দেহের অনেক হার মজবুত হয় এবং দ্রুত লম্বা হতে সাহায্য করে।

 

ভালো ভঙ্গি বজায় রাখুন

ভালো ভঙ্গি আপনাকে লম্বা দেখাতে সাহায্য করতে পারে। আপনি যখন হাটেন তখন লম্বা হয়ে দাঁড়ান এবং আপনার পিঠ সোজা রাখুন। এতে আপনাকে অনেকটা লম্বা দেখা যায়।


ব্যায়াম করুন

সুস্থ হাড় এবং পেশির জন্য প্রতিদিন 30 মিনিট ব্যায়াম করুন। ব্যায়াম সুস্থ থাকার পাশাপাশি আপনাকে লম্বা হতে সাহায্য করে। আপনি হাঁটতে পারেন কিংবা দৌড়াতে পারেন সাইকেলিং করতে পারেন সাঁতার কাটতে পারেন এসব আপনার হাড় এবং পেশী কে অতিরিক্ত মজবুত এবং শক্তিশালী করে তোলে যা আপনাকে দ্রুত লম্বা করে তোলে।

 

অসুস্থতার চিকিৎসা করুন

আপনি অসুস্থ বোধ করার সাথে সাথে অসুস্থতার চিকিৎসা করুন কারণ অসুস্থতা বৃদ্ধিকে ধীরগতি করে দেয়। চিন্তা করবেন না কারণ আপনার অসুস্থতার চিকিৎসা আপনাকে আবার বেড়ে উঠতে সাহায্য করবে। এজন্য যখনই আপনার শরীরে কোন রোগ বাসা বাঁধবে তখনই দেরি না করে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নেবেন। এতে আপনার উচ্চতা বৃদ্ধি পাবার সম্ভাবনা অনেক গুন বেড়ে যাবে।

 

মানসিক চাপ মুক্ত থাকুন

অতিরিক্ত মানসিক চাপ আমাদের দেহের জন্য অনেক ক্ষতিকর। কারণ আমাদের দেহের অনেক কাজের সাথেই হরমোন জড়িত রয়েছে। আর মানসিক চাপ হরমোন উৎপন্ন হতে বাধা দেয়।কারণ হরমোন আমাদের লম্বা হওয়ার জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ। লম্বা হতে গেলে নির্দিষ্ট পরিমাণ হরমোন এর প্রয়োজন হয় এজন্য লম্বা হতে অবশ্যই মানসিক চাপ মুক্ত থাকতে হবে যা বিভিন্ন রোগ থেকে দূরে রাখবে এবং দ্রুত লম্বা হতে সাহায্য করবে।

 

ধূমপান থেকে বিরত থাকুন

ধূমপান থেকে অবশ্যই বিরত থাকতে হবে। কারণ ধূমপান অনেক রোগের সৃষ্টি করে যা শরীরের বৃদ্ধিকে ধীরগতি করে ফেলে। তাছাড়া অনেক গর্ভবতী মায়েরা ধূমপান করেন তাদের বাচার অনেক ক্ষতি হয় তাই এসব থেকে অবশ্যই দূরে থাকতে হবে কারণ ধূমপান আপনার শরীরের বৃদ্ধি কে ধীরগতি করে ফেলো এজন্য অবশ্যই ধূমপান মুক্ত থাকতে হবে।

 

যোগ ব্যায়াম করুন

আপনার উচ্চতা সর্বোচ্চ করতে যোগ ব্যায়াম করুন। যোগব্যায়াম আপনার উচ্চতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে তাই আপনার উচ্চতা বাড়াতে অবশ্যই প্রতিদিন যোগ ব্যায়াম করুন।এই পুরো শরীরের ব্যায়াম বা অনুশীলন আপনার পেশি কে শক্তিশালী করতে পারে যা আপনাকে লম্বা হতে সাহায্য করতে পারে। আপনার নিজের বাড়িতে অথবা স্থানীয় জিম সেন্টারে যোগ ব্যায়াম করতে পারেন।তাছাড়া আপনি কিভাবে শুরু করবেন তা বুঝতে না পারলে ইউটিউব দেখে শিখে নিতে পারেন।

যোগ ব্যায়ামের কিছু উন্নত ভঙ্গি অন্তর্ভুক্ত করা হলোঃ

  • মাউন্টেন পোজ
  • কোবরা পোজ
  • শিশুর ভঙ্গি
  • ওয়ারিয়র পোজ

 

উচ্চতা বৃদ্ধির চিকিৎসা

বর্তমানে উচ্চতা বৃদ্ধির জন্য উন্নত চিকিৎসা বের হয়েছে যেমন ডিস্ট্রাকশন অস্টিওজেনেসিস নামে একটি অস্ত্রোপচার রয়েছে যা প্রাপ্তবয়স্কদের লম্বা করতে পারে। তবে উচ্চতা মাত্র কয়েক ইঞ্চি বৃদ্ধি করতে পারে। তবে এসব অনেক বেদনাদায়ক এবং ঝুঁকিপূর্ণ।তাছাড়াও শরীরে হরমোন ইনজেকশনের মাধ্যমে লম্বা করা হয় এবং কিছু ট্যাবলেট বাজারে আছে যার দ্বারা উচ্চতা বৃদ্ধি করা যায়। তবে এসব প্রয়োগ না করাই উত্তম।



তবে অনেকে বলে ৩০ দিনের মধ্যে নাকি লম্বা হওয়া সম্ভব। এসব কথায় কান দিবেন না কারন লম্বা হতে হলে অবশ্যই আপনাকে ধৈর্য ধরতে হবে এবং সঠিকভাবে নিয়ম-কানুন মেনে চলতে হবে। তবে অবশ্যই এসব মেনে চলার আগে আপনাকে ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে। আমাদের এই টিপস আপনার ভাল লাগলে অবশ্যই কমেন্ট এর মাধ্যমে জানাবেন ধন্যবাদ।

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *