ত্বক উজ্জ্বল করার উপায়
|

ত্বক উজ্জ্বল করার উপায় হিসাবে ১০টি কার্যকারী টিপস

স্বাস্থ্যকর সুন্দর ত্বক আমরা কে না পেতে চাই। কিন্তু,আমাদের ব্যস্তজীবনের লাইফস্টাইল, অপর্যাপ্ত ঘুম,দূষণ, ক্ষতিকর সূর্যের আলো,অতিরিক্ত অ্যালকোহল আমাদের ত্বককে নিস্তেজ ও ক্রমান্বয়ে শুষ্ক করে তোলে। আপনি চাইলেও এগুলো থেকে এড়িয়ে চলতে পারবেন না। কিন্তু, সমস্যার সমাধান করতে পারবেন খুব সহজেই। তাই প্রাকৃতিক উপায়ে আপনার বাড়ীতে বসেই আপনি ত্বকের উজ্জলতা বৃদ্ধি করতে পারবেন এতে আপনার সময়…

স্বাস্থ্যকর সুন্দর ত্বক আমরা কে না পেতে চাই। কিন্তু,আমাদের ব্যস্তজীবনের লাইফস্টাইল, অপর্যাপ্ত ঘুম,দূষণ, ক্ষতিকর সূর্যের আলো,অতিরিক্ত অ্যালকোহল আমাদের ত্বককে নিস্তেজ ও ক্রমান্বয়ে শুষ্ক করে তোলে। আপনি চাইলেও এগুলো থেকে এড়িয়ে চলতে পারবেন না। কিন্তু, সমস্যার সমাধান করতে পারবেন খুব সহজেই। তাই প্রাকৃতিক উপায়ে আপনার বাড়ীতে বসেই আপনি ত্বকের উজ্জলতা বৃদ্ধি করতে পারবেন এতে আপনার সময় এবং টাকা দুটিরই অপচয় রোধ হবে। তাই ত্বক উজ্জ্বল করার উপায় হিসাবে নিচে ১০টি কার্যকারী টিপস তুলে ধরার চেষ্ঠা করলাম।

এই টিপস গুলো মেনে চললে হয়তো রাতারাতি আপনার চেহারা পরিবর্তন হবে না, কিন্তু সাত দিনের মধ্যেই পরিবরতন লক্ষ্য করতে পারবেন। তাই উল্লেখযোগ্য ফলাফল পেতে এই টিপস গুলো অনুসরন করতে পারেন।

 

১. কাঁচা হলুদ

হলুদে রয়েছে কারকুমিন, এতে শক্তিশালী অ্যান্টি অক্সিডেনট রয়েছে। যা ত্বকের ক্ষতিকারক ফ্রি রাডিকেলগুলি দূর করে। এটি কোলাজেন উৎপাদন ও বাড়ায় এবং আপনার ত্বককে কোমল ও ঝলমলে রাখে। হলুদ, ত্বকের কালো দাগ দূর করতে সহায়তা করে এবং ত্বকের উজ্জলতা বৃদ্ধি করে। ময়দা আস্তে আস্তে ত্বকের ময়লা পরিষ্কার করে ত্বককে উজ্জ্বল করতে সাহায্য করে।

উপাদানঃ

    • ১/২ অথবা ১ চামচ হলুদ
    • ৪ টেবিল চামচ ময়দা
    • দুধ বা পানি

যা করতে হবেঃ

    • ময়দার সাথে হলুদ মিশিয়ে নেন ।তবে কাঁচা হলুদ দিতে পারলে বেশি ভাল হবে যদি কাঁচা হলুদ না থাকে তাহলে হলুদ গুঁড়া নিতে পারেন।
    • এই পেস্টিটির সাথে পরিমান মত দুধ বা পানি নিতে হবে।
    • এই পেস্টিটি আপনার মুখে এবং ঘাড়ে প্রয়োগ করুন। এটি ২০-২৫ মিনিট রেখে দিন। তারপর পানি নিয়ে ধুয়ে ফেলুন।
    • এই প্যাকটি সপ্তাহে ২ বার ব্যবহার করুন । তারপর নিজের পরিবর্তন বুঝতে পারবেন।

সতর্কতাঃ আপনি অবশ্যই হলুদের প্যাক ব্যবহার করার পর ১২ ঘণ্টা পর্যন্ত রোদে যাবেন না। এতে আপনার ত্বক পুড়ে যাওয়ার সম্ভবনা থাকে।

 

২. অ্যালোভেরা বা ঘৃতকুমারীঃ

অ্যালোভেরা বা ঘৃতকুমারী জেল পুষ্টিকর ও নিরাময় বৈশিষ্ট্য যা ত্বকের পূর্ণ যৌবন ধরে রাখতে খুবই ভাল কাজ করে। অ্যালোভেরা জেল ত্বকের কালো ছোপ ছোপ দাগ দূর হয় এবং উজ্জ্বলতা বেড়ে যায়।

উপাদানঃ

    • ১ টেবিল চামচ অ্যালোভেরা জেল
    • এক চিমটি হলুদ গুঁড়া
    • ১ চামচ দুধ

যা করতে হবেঃ

    • সব উপাদান এক সাথে পেস্ট করুন। এ মিশ্রনটি মুখে ও ঘাড়ে লাগাতে হবে।
    • এটি ২৫ মিনিটের জন্য রেখে দিতে হবে। তারপর কুসুম গরম পানি দিয়ে এটি ধুয়ে ফেলতে হবে
    • এই প্যাকটি সপ্তাহে ১-২ বার ব্যবহার করুন।

এলোভেরার অন্যান্য উপকারিতা এবং ব্যবহার জানতে পড়ুন

 

৩. লেবুঃ

লেবুতে রয়েছে প্রচুর পরিমান ভিটামিন সি যা ত্বককে ব্লিচ করে এবং ত্বকের ট্যান ভাব দূর করে। যেটা ত্বককে উজ্জ্বল করে। আর চিনি দানা-গুলি মৃত কোষ থেকে মুক্তি পেতে সহায়তা করার জন্য একটি এক্স ফোলাইটিং প্রভাব সরবরাহ করে। চিনি এমন একটি উপাদান যা একটি স্ক্রাব হিসেবে কাজ করে।

উপাদানঃ

    • ২ চামচ লেবুর রস
    • ২ চামচ চিনি

যেটা করতে হবেঃ

    • উপাদান গুলো মিশ্রিত করে আপনার মুখে লাগান।
    • এটি বৃওকার গতিতে স্ক্রাব করুন এবং ৫ মিনিটের জন্য রেখে দিন।
    • উজ্জ্বল ত্বক পেতে কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।
    • এটি সপ্তাহে ২বার ব্যবহার করুন।

 

৪. পাঁকা পেঁপেঃ

পাঁকা পেঁপেতে রয়েছে এমন একটি এনজাইম যা একটি হালকা এক্সফোলিয়েটার হিসেবে কাজ করে। এটি মুখের মৃত কোষ গুলির উপরের স্তর সরিয়ে দেয় এবং আপনার ত্বককে উজ্জ্বল ও কমবয়সী দেখায় ত্বকের টোন এনে দেয়।মধু একটি প্রাকৃতিক ময়েশ্চা্রায়জার এবং ত্বককে হাইড্রেড করে।এটি ত্বকের দাগ কমায় এবং এই প্যাকটি অ্যান্টি এজিং ফেস প্যাক হিসেবে কাজ করে।

উপাদানঃ

    • পাঁকা পেঁপে
    • ১ চামচ মধু
    • ১ চামচ চালের গুঁড়া

যেটা করতে হবেঃ

    • একটি পাঁকা পেঁপে নিয়ে ছোট ছোট টুকরা করে নিয়ে পেস্ট করতে হবে। এতে চালের গুঁড়া এবং মধু যোগ করতে হবে।
    • এই পেস্টটি মুখ এবং গলায় ভালোভাবে প্রয়োগ করতে হবে।
    • এটি ২০মিনিটের জন্য রেখে দিতে হবে, তারপর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।
    • এটি সপ্তাহে অন্তত ১বার হলেও ব্যবহার করুন।

 

৫. শসাঃ

শসা হচ্ছে ত্বকের জন্য শীতল। এর অ্যান্টি অক্সিডেনট গুলি দিয়ে নিস্তেজ ত্বককে পুনরায় পূরণ করে পুনজীবিত করে। এটি ত্বকের ফোলাভাব কমায়।

উপাদানঃ

    • ১ টেবিল চামচ শসার রস
    • পরিমান মত ডিমের সাদা অংশ

যা করতে হবেঃ

    • প্রথমে শসার পেস্টের সাথে ডিমের সাদা অংশ যোগ করতে হবে।
    • এটি মুখে ও গলায় ভালভাবে প্রয়োগ করতে হবে।
    • এটি ১০মিনিটের জন্য রেখে দিতে হবে।
    • এটি সপ্তাহে ১বার ব্যবহার করতে হবে।তারপর আপনি নিজেই পরিবর্তন লক্ষ্য করতে পারবেন।

 

৬. বেসনঃ

বেসন এমন একটি উপাদান যা ত্বকের ক্লিনজার হিসেবে কাজ করে। ত্বক রোদে পুরে যাওয়ার পর মুখে যে কালো কালো দাগ দেখা যায় তা দূর করতে সাহায্য করে এবং ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে।

উপাদানঃ

    • ২ চামচ বেসন
    • ১/২ চামচ হলুদ
    • দুধ বা পানি

যা করতে হবেঃ

    • প্রথমে বেসনের সাথে হলুদ এবং দুধ যোগ করে একটি প্যাক তৈরি করুন।
    • এই প্যাকটি মুখে এবং ঘাড়ে লাগান এবং ২০মিনিটের জন্য রেখে দিন।
    • তারপর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।
    • এই প্যাকটি সপ্তাহে ৩বার ব্যবহার করুন।

 

৭. অলিভ অয়েলঃ

অলিভ অয়েল বা জলপাই তেল একটি দুর্দান্ত ময়েশ্চারাইজার,এটি ত্বকের প্রাকৃতিক উজ্জ্বলতা ফিরিয়ে দেয়। এটি ত্বককে ফ্রি র‍্যাডিেকল থেকে রক্ষা করে। এটি ত্বক মেরামত করে এবংত্বক চকচকে করে তোলে।

উপাদানঃ

    • ১ টেবিল চামচ জলপাই তেল
    • একটি ছোট নরম তোয়ালে
    • গরম পানি

যা করতে হবেঃ

    • আপনার হাতে কয়েক ফোঁটা জলপাই তেল নিন এবং সমস্ত মুখে ও ঘাড়ে প্রয়োগ করুন।
    • তিন মিনিটের জন্য ম্যাসাজ করুন বিশেষত আপনার গাল,নাক এবং কপালে ম্যসাজ করুন।
    • তোয়ালেটি গরম পানিতে ডুবিয়ে রাখুন।অতিরিক্ত পানি বের করে ৩০-৪০সেকেন্ড মুখে ধরে রাখুন।
    • টিস্যু পেপার দিয়ে আপনার ত্বক শুকনো করুন।
    • ঘুমাতে যাওয়ার আগে প্রতি রাতে এটি করুন।

 

৮. গোলাপ জলঃ

গোলাপ জল ত্বকের একটি টোনার হিসেবে কাজ করে।এটি ত্বককে পরিষ্কার ও সতেজ করে। এটি রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি করে ও ত্বককে উজ্জ্বল করে।এটি ত্বকের পিএইচ ভারসাম্য বজায় রাখে।

উপাদানঃ

    • ২চামচ গোলাপজল
    • তুলোর বল
    • ১ চামচ মধু

যেটা করতে হবেঃ

    • গোলাপজল আধাঘণ্টা ফ্রীজে রেখে দিন।
    • তারপর গোলাপজল ও তুলোর বল ডুবিয়ে পুরো মুখ ও ঘাড়ে লাগান।
    • এরপর হালকা কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।
    • এটি প্রতিদিন সকাল ও সন্ধায় ব্যবহার করুন।

 

৯. মধুঃ

মধুতে প্রচুর পরিমান অ্যান্টি অক্সিডেনট রয়েছে। ত্বকের জন্য মধু ময়েশ্চারাইজার হিসেবে কাজ করে। মধু ত্বককে ব্লিচ করে চকচকে ভাব এনে দেয়। এবং ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে।

উপাদানঃ

    • ১ টেবিল চামচ মধু
    • ১ টেবিল চামচ লেবুর রস

যা করতে হবেঃ

    • প্রথমে মধু ও লেবুর রস যোগ করতে হবে।
    • তারপর পরিষ্কার মুখে এটা লাগাতে হবে।
    • এভাবে ১৫মিনিট রেখে দিতে হবে।
    • এরপর হালকা ভাবে ম্যাসাজ করে কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।
    • সপ্তাহে ২ বার ব্যবহার করুন।

মধুর উপকারিতা ও ব্যবহার জানতে পড়ুন

 

১০. দুধঃ

স্বাস্থ্যকর এবং উজ্জ্বল ত্বকের জন্য এটি একটি পুরনো সূত্র। কাঁচা দুধে ত্বক বান্ধব উপাদান রয়েছে প্রোটিন কালসিয়াম ও ভিটামিন সি।দুধ ত্বকের জন্য খুবিই উপকারী একটি উপাদান। যা ত্বককে উজ্জ্বল করতে সহায়তা করে।

উপাদানঃ

    • ২টেবিল চামচ দুধ
    • ১ টেবিল চামচ মধু
    • ১ চামচ বেসন

যেটা করতে হবেঃ

    • বেসনের সাথে দুধ ও মধু একসাথে পেস্ট করুন।
    • মুখে ও গলায় ভালোভাবে প্রয়োগ করুন।
    • তারপর ২০ মিনিটের জন্য রেখে দিন। প্যাকটি শুকতে দিন।
    • এরপর কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।
    • সপ্তাহে ২বার ব্যবহার করুন ।এবং নিজেই পরিবর্তন বুঝতে পারবেন।

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *