এলোভেরার উপকারিতা
|

এলোভেরার উপকারিতা এবং ব্যবহার

এলোভেরা একটি জনপ্রিয় ঔষধি উদ্ভিদ। এলোভেরার উপকারিতা অপরিসীম আর তাই মানুষ হাজার হাজার বছর ধরে ব্যবহার করে আসছে। এলোভেরা ঘৃতকুমারী নামেও পরিচিত। এলোভেরা বা অ্যালো একটি স্বল্প কান্ড যুক্ত উদ্ভিদ। এই উদ্ভিদ  তার পাতায় জেল সঞ্চয় করে থাকে। অ্যালোভেরা জেল এ রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এতে আরও ভিটামিন সি ভিটামিন ই,  বিটা ক্যারোটিন সমৃদ্ধ এবং…

এলোভেরা একটি জনপ্রিয় ঔষধি উদ্ভিদ। এলোভেরার উপকারিতা অপরিসীম আর তাই মানুষ হাজার হাজার বছর ধরে ব্যবহার করে আসছে। এলোভেরা ঘৃতকুমারী নামেও পরিচিত। এলোভেরা বা অ্যালো একটি স্বল্প কান্ড যুক্ত উদ্ভিদ। এই উদ্ভিদ  তার পাতায় জেল সঞ্চয় করে থাকে। অ্যালোভেরা জেল এ রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এতে আরও ভিটামিন সি ভিটামিন ই,  বিটা ক্যারোটিন সমৃদ্ধ এবং বার্ধক্য বিরোধী ঔষধ। চিকিৎসার জন্য সর্বাধিক পরিচিত এটি ত্বকের আঘাতের চিকিৎসার জন্য সর্বাধিক পরিচিত। তবে আরো বেশ কয়েকটি ব্যবহার রয়েছে। অ্যালোভেরা এমন একটি উদ্ভিদ এর গুনাবলী বলে শেষ করা যাবেনা। সৌন্দর্যচর্চায় এলোভেরার অত্যন্ত জনপ্রিয়।

এলোভেরার ব্যবহার

অনেকেই ভাবতে পারেন আমি অ্যালোভেরা কিভাবে ব্যবহার করবো? তাদের জন্য ছোট্ট করে বলে রাখি, প্রথমে আপনি এলোভেরার পাতা নিন। পাতাটি ভালোভাবে ধুয়ে পরিষ্কার করে নিতে হবে। এরপর ছুরি দিয়ে প্রথমে পাতার দুই ধার কেটে নিন। এরপর উপরের  ছাল তুলে নিয়ে জেল বের করুন। এই জেলটি আপনি ছুরি বা চামচের সাহায্যে বের করে নিতে পারবেন। এই জেল আপনি সরাসরি ব্যবহার করতে পারবেন তাছাড়া কোন কিছু মিশিয়ে ও ব্যবহার করতে পারবেন। এছাড়াও আপনি শরবত বা জুস হিসেবে অ্যালোভেরা খেতে পারবেন।

এলোভেরার উপকারিতা

এলোভেরার কিছু অবিশ্বাস্য উপকারিতা রয়েছে। যা ব্যবহারের মাধ্যমে আপনি অনেক উপকৃত হবেন। এজন্য অবশ্যই আপনাকে অ্যালোভেরা জেল ব্যবহার করতে হবে। সবথেকে ভালো হবে ঘরে তৈরি এলোভেরার ব্যবহার করা। তবে আসুন বিস্তারিত জেনে নেই এলোভেরার উপকারিতা কি এবং কিভাবে ব্যবহার করতে পারবেন।

ত্বকের যত্নে অ্যালোভেরার উপকারিতা

ত্বকের যত্নে অ্যালোভেরা জেল অবিশ্বাস্য ভাবে কাজ করে। অ্যালোভেরা জেল ত্বকের যত্নে জাদুকরী উপাদান। আপনি ব্যবহার না করলে বিশ্বাসই করতে পারবেন না যে এই জেল এত ভাল কাজ করে।

গরমকালে কিভাবে ত্বকের যত্ন নিতে হয় তা জানতে ক্লিক করে পড়ে আসতে পারেন।

শুষ্ক ত্বকের জন্য অ্যালোভেরা

অ্যালোভেরা জেল

শুষ্ক ত্বকের জন্য অ্যালোভেরা অত্যন্ত উপকারী। অ্যালোভেরা জেল এ রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল উপাদান যা ত্বকের মৃত কোষ দূর করে এবং ত্বক ময়েশ্চারাইজ করতে সাহায্য করে। এজন্য আপনি পরিমাণমতো অ্যালোভেরা জেল এক চিমটি হলুদ এক চামচ মধু ১ চামচ দুধ এবং ২ থেকে ৩ ফোটা গোলাপ জল নিবেন।

এরপর এটি ভালোভাবে মিশিয়ে মুখে মুখে দিয়ে ২০ মিনিট পর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলবেন। এই প্যাকটি শুষ্ক ত্বকের জন্য খুবই ভালো। আপনি এই প্যাকটি সপ্তাহে দুই থেকে তিনবার ব্যবহার করবেন। এতে আপনার ত্বক অনেক উজ্জ্বল এবং মসৃণ হবে এবং ফলাফল আপনি নিজেই বুঝতে পারবেন।

ব্রণের জন্য অ্যালোভেরার উপকারিতা

ব্রণের জন্য অ্যালোভেরা জেল অত্যন্ত কার্যকরী একটি উপাদান। অ্যালোভেরা জেল ব্যবহার করলে ব্রণ এবং ব্রণের কালো দাগ খুব সহজেই মিশে যায়। ব্রণের জন্য আপনি এই প্যাকটি প্রতিদিন ব্যবহার করবেন। একটি বাটিতে দুই চামচ অ্যালোভেরা জেল এক চামচ মধু এবং 1 চামচ লেবুর রস মিশিয়ে ব্যবহার করুন আপনি এই প্যাকটি ব্যবহার করলে আশ্চর্য হবেন যে কত তাড়াতাড়ি আপনার ব্রন নিমিষেই দূর হবে। এটি আপনি সপ্তাহে দুই থেকে তিনবার ব্যবহার করবেন।

ব্রণ দূর করার আরো কিছু উপায় জানতে ভিজিট করুনঃ

রোদে পোড়া দাগ দূর করতে

অ্যালোভেরা সানবার্ন বা রোদে পোড়া দাগ খুব সহজেই দূর করে। আপনি যদি প্রতিদিন বাহিরে বের হন তাহলে খেয়াল করবেন আপনার মুখে ছোপ ছোপ  দাগ বা রোদে আপনার ত্বক ঝলসে গেছে অ্যালোভেরা আপনার ত্বকে রোদে থেকে বাঁচাতে সাহায্য করে। এজন্য বাহিরে থেকে আসার এক ঘন্টা পরে আপনি এটি ব্যবহার করতে পারবেন। আপনি অ্যালোভেরা জেল বরফ বা আইস ট্রেতে করে ফ্রিজে রাখবেন। বাহিরে থেকে আসার একঘন্টা পরে ফ্রিজ থেকে ওই আইস কিউব গুলো বের করে আপনার মুখে আলতো করে ঘুষে নিবেন। এতে আপনার দাগ দূর হবে এবং অনেক সতেজ লাগবে।

আই ক্রিম হিসাবে ব্যবহার

আই ক্রিম হিসেবে এলোভেরা জেল ব্যবহার করতে ব্যবহার করতে পারবেন। আপনার চোখের নিচে অংশ যদি ডার্ক সার্কেল থাকে। তাহলে প্রতিদিন রাতে শোবার সময় আপনার চোখের নিচে এলোভেরা জেল ব্যবহার করতে পারেন। এতে আপনার চোখের নিচের ডার্ক সার্কেল দূর হবে।

স্ক্রাব হিসাবে ব্যবহার

স্ক্রাব হিসেবে অ্যালোভেরা জেল অত্যন্ত উপকারী। স্ক্রাবিং করলে শরীরের মৃতকোষগুলো দূর হয়ে যায়, শরীর উজ্জল এবং কোমল হয়। আধা কাপ পরিমাণ অ্যালোভেরা জেল ১ কাপ চিনি এবং ২ চামচ লেবুর রস মিশিয়ে আপনার পুরো শরীরে আলতোভাবে স্ক্রাব অথবা ঘষতে হবে, বেশি জোরে জোরে আবার ঘষা যাবে না। এভাবে সপ্তাহে দুদিন আপনি গোসলের আগে স্ক্রাবিং করতে পারেন।

তৈলাক্ত ত্বকের জন্য

যাদের তৈলাক্ত ত্বক তারা কোন ভারী মশ্চারাইজার ব্যবহার করতে পারেন না। এজন্য আপনি আলোভেরা জেল ময়েশ্চারাইজার হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন। কারণ অ্যালোভেরা জেল কে প্রাকৃতিক ময়েশ্চারাইজার বলা হয়। তৈলাক্ত ত্বকের জন্য অ্যালোভেরা জেল খুবই ভালো মানের মশ্চারাইজার। তবে এর আগে এলোভেরা মুখে ব্যবহারের নিয়ম কানুনগুলোও আপনার অবশ্যই ভালো করে জেনে নিতে হবে।

ত্বকের ক্ষত সারাতে

অ্যালোভেরা জেল ত্বকের ক্ষত বা আঘাতের চিহ্ন দূর করতে খুবই কার্যকর। এই জেল শুধু ক্ষত দূর করতে পারেনা বরং ব্যথা দূর করতেও সাহায্য করে। এজন্য অ্যালোভেরা জেল কে জাদুকরী ঔষধ বলা হয়।

ঠোঁটের শুষ্কতা দূর করে

ঠোঁটের শুষ্কতা দূর করতে অবশ্যই অ্যালোভেরা জেল ব্যবহার করতে হবে। প্রতিরাতে ঘুমানোর সময় অ্যালোভেরা জেল এর সাথে নারিকেল তেল  অথবা অলিভ অয়েল মিশিয়ে ঠোঁটে লাগাতে হবে। এটি ব্যবহার করলে ঠোঁটের মরা চামড়া দূর হয়ে যায় এবং শুষ্কতার হাত থেকে রক্ষা পায়। এতে আপনার ঠোঁট অনেক নরম এবং কোমল হয়। 

কালো দাগ দূর করে

ত্বকের যেকোনো কালো দাগ দূর করতে অ্যালোভেরা জেলের কোন তুলনা হয় না। সেটি হতে পারে  স্ট্রেচ মার্ক কিংবা আন্ডারআর্ম এবং ত্বকের যে কোন কালো দাগ খুব সহজেই দূর করতে সাহায্য করে। 

অবাঞ্ছিত লোম দূর করে

ত্বকের অবাঞ্ছিত লোম দূর করতে এলোভেরা জেল অ্যালোভেরা জেল অত্যন্ত কার্যকরী। এজন্য আলোভেরা জেল কে জাদুকরী জেল বলা হয়। 

এলোভেরা দিয়ে চুলের যত্ন

চুলের যত্নে অ্যালোভেরা জেল সকলের কাছে খুবই পরিচিত। কারণ অ্যালোভেরা জেলকে প্রাকৃতিক কন্ডিশনার বলা হয়। চুলের যত্নে অ্যালোভেরা জেল খুবই উপকারী।

চুল পড়া দূর করে

অ্যালোভেরা খুবই তাড়াতাড়ি চুল পড়া রোধ করতে করে।  অবিশ্যাস্য ফলাফল পেতে অবশ্যই এই হেয়ার প্যাক টি ব্যবহার করুন।  প্রয়োজনমতো অ্যালোভেরা জেল, তিন চামচ মধু ,নারিকেল তেল অথবা অলিভ অয়েল পরিমাণমতো নিয়ে এটিকে ভালভাবে মিশিয়ে চুলে লাগাতে হবে এবং এক ঘন্টা পর শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে। সপ্তাহে দুই থেকে তিন দিন ব্যবহার করলে  ১৫ দিনের মধ্যে চুল পড়া একেবারে কমে যাবে। 

খুশকি দূর করতে

অ্যালোভেরা জেল মাথার খুশকি দূর করতে সাহায্য করে। অ্যালোভেরা জেল আর লেবুর রস একসাথে মিশিয়ে ব্যবহার করলে মাথার তালুতে এবং চুলেও লাগাতে হবে । এই হেয়ার প্যাক ব্যবহারে আপনার মাথার খুশকি দূর হবে এবং চুলের চুলের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পাবে।

চুলের আগা ফাটা দূর করে 

চুল অতিরিক্ত শুষ্ক হয়ে গেলে চুলের আগা অনেক ফেটে যায় এবং ঝাড়ুর মত হয়।  অ্যালোভেরা জেল ব্যবহার করলে চুলের আগা ফাটা দূর হয় কারণ আলোভেরা জেল প্রাকৃতিক কন্ডিশনার হিসেবে কাজ করে ।এতে চুল নরম ও উজ্জ্বল হয় এবং চুল দ্রুত বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। 

হেয়ার সিরাম বা হেয়ার জেল হিসাবে ব্যবহার

বিশ্বজুড়ে অনেকেই অ্যালোভেরা জেল কে  হেয়ার সিরাম বা হেয়ার জেল হিসেবে ব্যবহার করে। কারণ অ্যালোভেরা জেল হেয়ার সিরাম এর মত কাজ করে। যারা চুল স্ট্রেট বা  কারলি করেন প্রতিদিন তারা হেয়ার সিরাম হিসেবে অ্যালোভেরা জেল ব্যবহার করেন। এতে চুলের কোন ক্ষতি হয় না বরং চুল অনেক সুন্দর এবং উজ্জ্বল হয়। 

ওজন কমাতে অ্যালোভেরা

শুধু সৌন্দর্য চর্চায় অ্যালোভেরা ব্যবহৃত হয় না বরং স্বাস্থ্য সেবায়ও ব্যবহৃত হয়। অ্যালোভেরা শুধু জেল হিসেবে ব্যবহার করা যায় না, এটি ক্রিম ও জুস হিসেবে ব্যবহার করা যায়। অসংখ্য প্রমাণ মিলেছে যে অ্যালোভেরা ওজন কমানোর জন্য কতটা কার্যকর। কিন্তু প্রতিদিন অ্যালোভেরার জুস খেতে হবে এবং দীর্ঘ সময় ধরে খেলে এটি সত্যিই ওজন কমাতে সাহায্য করে। কারণ এখানে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এবং খনিজ রয়েছে যা ওজন কমাতে ভূমিকা রাখে। অ্যালোভেরা টুকরো করে ব্লেন্ড করে নিয়ে এর সাথে মধু এবং লেবুর রস মিশিয়ে খেতে পারেন।

উচ্চ রক্তচাপ কমাতে অ্যালোভেরা

উচ্চরক্তচাপ এক নীরব ঘাতক যা ধীরে ধীরে রক্তনালী গুলোকে ক্ষতিগ্রস্ত করে স্ট্রোক,  হার্ট অ্যাটাক এবং জটিল সমস্যার সৃষ্টি করে। কিন্তু অ্যালোভেরা জুস পান করলে উচ্চ রক্তচাপ এর ওষুধ হিসেবে কাজ করে।  গবেষকরা মনে করেন এটি উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে। 

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করতে অ্যালোভেরা

অ্যালোভেরা ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে। যারা ইনসুলিন এর উপর নির্ভরশীল তারা অবশ্যই অ্যালোভেরার জুস পান করবেন অনেক ভাল ফলাফল পাবেন বলে আশা করি।  গবেষকদের মতে,  রক্তের সুগার কে অ্যালোভেরা জুস স্থিতিশীল করে। 

হজম শক্তি বাড়াতে

অ্যালোভেরা  জুস পান করলে আপনার পাচনতন্ত্রের অনেক উপকার হয়। যদি আপনার এসিডিটির সমস্যা থাকে কিংবা হজমের সমস্যা থাকে। তাহলে অবশ্যই অ্যালোভেরার জুস পান করবেন তাহলে আপনার হজম শক্তির অনেক উন্নতি হবে। 

মাউথওয়াশ হিসাবে ব্যবহার

অ্যালোভেরা প্রাকৃতিক মাউথ ওয়াশ হিসেবে কাজ করে। এটি মুখের দুর্গন্ধ দূর করে এবং দাঁতকে সাদা ঝকঝকে করে তোলে। 

দাঁতের সমস্যা দূর করে

দাঁতের বিভিন্ন রকম সমস্যা দূর করতে অ্যালোভেরা পেস্ট হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন। এতে দাঁতের ক্ষয় রোধ হবে এবং দাঁতের ব্যথা সেরে যাবে।

ক্লান্তি দূর করে

অ্যালোভেরা জেল ক্লান্তি দূর করতে সাহায্য করে।  ক্লান্তি দূর করতে অবশ্যই অ্যালোভেরার কোন ফেসপ্যাক ব্যবহার করতে পারেন। কিংবা আইস কিউব ব্যবহার করতে পারেন। দেখবেন খুব সহজেই আপনার ক্লান্তি দূর হয়ে যাবে।

অ্যালোভেরার যেরকম উপকারিতা রয়েছে তেমনি কিছু সাইড ইফেক্ট রয়েছে। যাদের ত্বকে এলার্জি সমস্যা রয়েছে তারা অ্যালোভেরা জেল ব্যবহার করলে চুলকাতে পারে  বা জ্বালাপোড়া করতে পারে। এজন্য অবশ্যই যাদের স্কিনের সমস্যা রয়েছে তারা অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে অ্যালোভেরা জেল ব্যবহার করতে পারেন।

 

Similar Posts

One Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *